শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:২৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গোয়াইনঘাটে ইউআরসির ৩লক্ষ ৯৪হাজার টাকা আত্মসাৎ’র পায়তারা..! সমালোচনার ঝড় অস্তিত্ব সংকটে গোয়াইনঘাট ছাত্রলীগ! অনুপ্রবেশকারী ও বিবাহিতদের দখলে ৩ নং পূর্ব জাফলং ছাত্রলীগ : ত্যাগী কর্মীরা পদ বঞ্চিত প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করলেন জাফলংয়ের সুমন ডৌবাড়ী ইউনিয়ন প্রবাসী কল্যাণ ট্রাস্টের কমিটি গঠন”সভাপতি এনামুল’সম্পাদক আরিফ গোয়াইনঘাট ভূয়া সাংবাদিক তানজিল র প্রতারনা অনিশ্চিত দিন যাপন #মেহেরুন নেছা সুমি ডৌবাড়ী প্রাথমিক বিদ্যালয় সীমানা প্রাচীর নিয়ে দ্বন্ধের নিষ্পত্তি নিজ প্রতিষ্ঠানের সামনে সমাহিত মুফতি আব্দুর রহমান ক্বাসীমির লাশ”শোকে কাতর গোয়াইনঘাট মুফতি আব্দুর রহমান ক্বাসীমির ইন্তেকাল, বিভিন্ন মহলে শোক পাথররাজ্য পরিদর্শনে মন্ত্রী পরিষদ সচিব মো: কামাল হোসেন পানি পানের উপকারিতা” ডা.লোকমান হেকিম। লেঙ্গুড়া ইউপি নির্বাচনে নতুন চমক যুবনেতা আব্দুল মন্নান দুজনই সব বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন এইচএসসি না অটো পাশ- সুমাইয়া আক্তার চলে যাওয়া মেহেরুন নেছা সুমি দয়ামীর ইউনিয়ন নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী সাঈদ আহমদ বর্ষাতে তোমাকে দেখি #মেহেরুন নেছা সুম পদ্ম দিঘি -মেহেরুন নেছা সুমি গোয়াইনঘাটে যুবকের উপর দুর্বৃত্তের হামলা” থানায় অভিযোগ দায়ের গোয়াইনঘাট প্রবাসী টাস্ট র কমিটি গঠন”সভাপতি বিলাল সম্পাদক লুৎফুর স্হানীয় সরকার নির্বাচন দলীয় প্রতিকে হবে- সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম Ntv ইউরোপের গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি র নিয়োগ পেলেন কে,এ,রাহাত সকাল….. মেহেরুন নেছা সুমি গোয়াইনঘাটে একাধিক মামলার পলাতক আসামী জহির পুলিশের হাতে আটক জৈন্তিয়া ১৭ পরগনা সালিশ সমন্বয় কমিটির সাথে ইমা-লেগুনা মালিক সমিতির মতবিনিময় সভা গোয়াইনঘাট অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক নাসির উদ্দিনের মৃত্যু”বিভিন্ন মহলের শোক ডায়াবেটিস থেকে দাঁতের রোগ ফলমূল চাষ করে স্বাবলম্বী শারীরিক প্রতিবন্ধী গোয়াইনঘাট র দিদারুল আলম
ভোরের অনুভূতি -একটি হাতের নাম অজুহাত

ভোরের অনুভূতি -একটি হাতের নাম অজুহাত

আব্দুল আহাদ
করোনার জন্য আমরা শুধু বাহিরের লোকগুলোকে ঘরে ফিরতে বলছি। অন্যদিকে ঘরের লোকগুলো যে সেই সন্ধ্যা রাত থেকে ভোর ০৬:০০ টা পর্যন্ত মোবাইল নামের যন্ত্রনার কবলে পড়ে নি:শেষ হয়ে যাচ্ছে তাদের কি হবে?? বাচ্চাগুলো ঘুমুচ্ছে শেষ রাতে, মা ঘুমাচ্ছে ভোর রাতে,বাবা ঘুমাচ্ছে সাজ সকালে তাহলে রাত হবে কখন?? বাচ্ছাদের সঠিক সময়ে সুষম খাবার বন্টন করবে কোন বাবা মা? করোনা প্রতিরোধে নিজের ও পরিবারের শারিরীকও মানসিক শক্তির যোগানদাতা হবে কে? সময়ানুবর্তীতা সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে জ্ঞান যোগাবে কোন অভিবাবক?? ভোরের পাখির কলতান, শীতের শিশির ভেজা ঘাস নিয়ে গদ্য রচনা করবে কোন প্রজাতি??পৃথিবীটা সত্যিই কেমন যেন অস্থির হয়ে যাচ্ছে। সবকিছু নিমিষেই যেন তলিয়ে যাচ্ছে। সময়কে পার করতে গিয়ে আমরা যেন প্রতিটি মুহুর্তটাকে গলা টিপে হত্যা করছি। করোনার দাবানলে সরাসরি যে পুড়ছে না, সেও পরোক্ষভাবে তার তাপদাহে জ্বলেপুড়ে অঙ্গার হয়ে যাচ্ছে। তার মানে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে প্রতি মুহুর্তে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ। করোনার একটি ভাইরাস সরাসরি মানবদেহে প্রবেশ করে মানুষের ফুসফুসকে নিস্তেজ করে দিচ্ছে আবার অন্য ভাইরাস জীবন্ত মানুষগুলোর মস্তিষ্কের সকল সচল সেলগুলোকে তিলে তিলে শেষ করে যাচ্ছে ।
আচ্ছা একটি পরিবারের প্রতিদিনের দৈনন্দিন কাজগুলোকে যদি আমরা একটু আদর্শিক পরিবারের লাইফ স্টাইল অনুযায়ী ভাগ করি তাহলে কতোটুকু সময়একটি পরিবারের অলস হিসেবে হাতে থাকে, তা দেখে নেয়া যায়—

করোনায় কাজের ভুয়াবিহীন একটি মুসলিম পরিবার কাল্পনিক সময় বন্টন:
ফজরের নামাজ ৪:৪৫ হালকা নাস্তা সেরে পুনরায় একটু বিশ্রাম।
৬: ০০ টায় বাচ্চাদের ঘুম থেকে তুলে হাতমুখ ধৌত করে পড়াতে বসানো। নাস্তা প্রস্তুত করতে ৭/৮ টা। ঘর দোয়ার পরিস্কার, দরজা জানালা খোলে বাসার আঙ্গিনা পরিস্কার করতে ৯/৯:৩০ টা। ওয়াশরুম, ফ্লোর বাসাবাড়ির জমানো কাপড় চোপড় ইত্যাদি ধৌত করতে ১১/১২ টা। বাচ্ছাদের ফলমূল, ঔষধ সেবন আত্মীয় -স্বজনের খোঁজখবর নিতে দুপুর ১:০০ টা। দুপুরের খাবার প্রস্তুত, গোছল,নামাজ, দুপুরের খাবার( বাচ্চাদের সহ) ইত্যাদি বিকেল ৩: ৩০ টা। বাচ্চাদের সাথে একটু খেলাধুলা,একটু টিভি সংবাদ তারপর বিশ্রাম/ ঘুম ৪:৩০ ঘ:। আছরের নামাজ, বিকেলের নাস্তা ৫:৩০ ঘ:। মাগরিবের নামাজ, বাচ্ছাদের পড়াশুনা, রাতের খাবার প্রস্তুত ৮:০০ ঘ:। রাতের খাবার ৯-১০ ঘ:। এশার নামাজ,পরিবার নিয়ে গল্পগুজব, টিভি, আত্মীয়স্বজনের সাথে ফোনালাপ ১১:০০ ঘ: পর্যন্ত। বাচ্চাদের ঘুম পাড়ানো, নিজেও ঘুমুতে যাওয়া, ধার্মিক অথবা যে কোন বই নিয়ে পড়াশুনা ইত্যাদি করতে ঘুমের জন্য প্রস্তুতি নিতে ১২– ১২:৩০ঘ:। রাত ১২:৩০- থেকে পরবর্তী ৬/৭ ঘন্টা ঘুমানো যদি একজন সুস্থ মানুষের প্রয়োজন হয় তাহলে সেই সময় তো খোজে পাওয়া যাচ্ছে না। একটি পরিবারে বিরক্তিকর সময়টুকু হাতে কখন থাকে তার কোন উত্তর নেই। সবার যেন একটিই কমন কথা ঘরে বসে সময় যাচ্ছে না। তাই দিনকে রাত আর রাতকে দিন করে বাচ্চা কাচ্চাসহ মোবাইলের উপর হুমড়ী খেয়ে পড়ে যেতে হবে।অন্য কোন প্রাত্যহিক কাজ করা যাবে না।নতুবা ঘর থেকে বেরিয়ে পড়তে হবে। “করোনা ” হয়তো মানুষের কাছ থেকে বিদায় নেবার সময় জানতে চাইবে। করোনা বলবে আমি তো তোমাদের মতো সুস্থ মানুষদেরকে আক্রমন করিনি তাহলে তোমাদের মস্তিস্কের কোষগুলোকে কোন ভাইরাসে নিস্তেজ করে দিলো।

তাই আজকের পৃথিবীর এই করুন পরিস্থিতির জন্য “করোনা” নাকি আমরা দায়ী সেই প্রশ্নের জবাব হয়তো দিতে না পারলেও অজুহাত দেখাতে পারবো। যেহেতু আমাদের দুটি হাতের পরও অদৃশ্য একটি হাত রয়েছে আর সেটি হচ্ছে অজুহাত।
( যদিও দীর্ঘ সময় ঘরে থাকা ভীষন কষ্টের, তবুও একটি কষ্টকে কোন অনিষ্ট দিয়ে পুষিয়ে নেয়াটা হবে আরও ভয়ানক। একটিকে জয় করতে হলে কিছু কষ্টকে মেনে নিতে হবে।নতুন প্রজন্মকে যে কোন মূল্যে আমাদের সুস্থ রাখাটা হবে প্রধান কাজ।

লেখক আব্দুল আহাদ-
অফিসার ইনচার্জ, গোয়াইনঘাট থানা,সিলেট।





© All rights reserved © 2019 Gowainghatprotidin
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ